logo
   প্রচ্ছদ  -   ইসলাম

যেভাবে কথা বলতে শিখিয়েছেন নবী মুহাম্মদ (সা.)
Posted on Nov 18, 2020 05:26:52 PM.

যেভাবে কথা বলতে শিখিয়েছেন নবী মুহাম্মদ (সা.)

কথা মানুষকে যেমন জান্নাতে পৌঁছাতে সাহায্য করে, অনুরূপ জাহান্নামের পথেও নিয়ে যায়। কথাবার্তা দিয়ে একজন মানুষের ভালো-মন্দ যাচাই করা যায়। 

এরই মধ্যে ফুটে ওঠে তার ব্যক্তিত্ব ও স্বভাব। একজন মুমিনের কথাবার্তা কেমন হবে, কেমন হবে তার সম্বোধন—তার উত্তম দৃষ্টান্ত রয়েছে রাসুল (সা.)-এর জীবনে। নিম্নে মহানবী (সা.)-এর কথাবার্তা ও বাকভঙ্গির নানা দিক তুলে ধরা হলো—

বিশুদ্ধভাষী: রাসুল (সা.) ছিলেন সবচেয়ে বিশুদ্ধ ভাষার অধিকারী। তাঁর উচ্চারণ, শব্দ প্রয়োগ ও বাচনভঙ্গি সবই ছিল বিশুদ্ধতার মাপকাঠিতে উত্তীর্ণ। হিন্দ ইবনে আবু হালা (রা.)-কে রাসুল (সা.)-এর বাচনভঙ্গি সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, রাসুল (সা.) তিনি বেশির ভাগ সময় নীরব থাকতেন। বিনা প্রয়োজনে কথা বলতেন না। তিনি স্পষ্টভাবে কথা বলতেন।  তিনি ব্যাপক অর্থবোধক বাক্যালাপ করতেন। তাঁর কথা ছিল একটি থেকে অপরটি পৃথক। তাঁর কথাবার্তা অতি বিস্তারিত কিংবা অতি সংক্ষিপ্তও ছিল না। অর্থাৎ তাঁর কথার মর্মার্থ অনুধাবনে কোনো প্রকার অসুবিধা হতো না। তাঁর কথায় কঠোরতার ছাপ ছিল না, থাকত না তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যের ভাব। ’ (শামায়েলে তিরমিজি, হাদিস : ১৬৭)

স্পষ্টতা: স্পষ্টতা কথার অন্যতম গুণ। শ্রোতার মনে স্পষ্ট কথার প্রভাব বেশি পড়ে। আয়েশা (রা.) বলেন, ‘রাসুল (সা.)-এর কথা এত সুস্পষ্ট ছিল যে প্রত্যেক শ্রোতা তাঁর কথা বুঝত। ’ (আবু দাউদ, হাদিস : ৪৮৩৯)

ধীরস্থিরতা: ধীরস্থিরতা কথার অন্যতম গুণ। দ্রুত গতিতে কথা বলা, যা মানুষের বুঝতে কষ্ট হয় দোষণীয়। রাসুল (সা.) কথাবার্তায় ধীরস্থির ছিলেন। আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, ‘রাসুল (সা.) এমনভাবে কথা বলতেন যদি কোনো গণনাকারীর গণনা করতে ইচ্ছা করে তবে সে গুনতে পারবে। ’ (মুসলিম, হাদিস : ৭৩৯৯)

সত্যবাদিতা: কথার সত্যতা হলো কথার সঙ্গে বাস্তবতার মিল থাকা। সত্যের একটা প্রভাব আছে, যা মানুষকে আকর্ষণ করে। কোরআনে সত্য কথার প্রতি গুরুত্ব দিয়ে বর্ণিত হয়েছে, ‘হে ঈমানদারগণ! তোমরা আল্লাহকে ভয় করো এবং সত্যবাদীদের সঙ্গে থাকো। ’ (সুরা : তাওবা, আয়াত : ১১৯)

রাসুল (সা.) নবুয়তের  আগে ও পরে সত্যবাদী হিসেবে পরিচিত ছিলেন। সত্যবাদী হিসেবে তাঁর খ্যাতি ছিল শৈশব থেকে। রাসুল (সা.) সাহাবিদের সত্য বলতে উৎসাহিত করেছেন। আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেন, নিশ্চয়ই সত্য ভালো কাজের পথ দেখায় আর ভালো কাজ জান্নাতের পথ দেখায়। আর মানুষ সত্য কথা বলতে অভ্যস্ত হলে আল্লাহর কাছে সত্যবাদী হিসেবে (তার নাম) লিপিবদ্ধ হয়। নিশ্চয়ই অসত্য পাপের পথ দেখায় আর পাপ জাহান্নামের পথ দেখায়। কোনো ব্যক্তি মিথ্যায় রত থাকলে পরিশেষে আল্লাহর কাছে মিথ্যাবাদী হিসেবেই (তার নাম) লিপিবদ্ধ করা হয়। (বুখারি, হাদিস : ৬০৯৩)

মিষ্টভাষী: রাসুল (সা.) কথাবার্তায় ও আচার-আচরণে কোমলতা অবলম্বন করতেন। কর্কশ ও রূঢ় ভাষায় কারো সঙ্গে কথা বলতেন না এবং কাউকে সম্বোধনও করতেন না। কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘আপনি যদি কঠোর হৃদয়ের হতেন, তবে মানুষ আপনার থেকে দূরে চলে যেত। ’
(সুরা : আলে ইমরান, আয়াত : ১৫৯)

বাহুল্য বর্জন: রাসুল (সা.) কখনো প্রয়োজন ছাড়া কথা বলতেন না। সওয়াবহীন কাজে কখনো সময় ব্যয় করতেন না। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেন, কোনো ব্যক্তির ইসলাম পালনের অন্যতম সৌন্দর্য হলো অনর্থক কথা ও কাজ ত্যাগ করা। ’ (তিরমিজি, হাদিস : ২৩১৮)

শালীনতা: রাসুল (সা.)-এর কথাবার্তা শালীনতার চাদরে আবৃত ছিল। তিনি কখনো অশালীন কথা বলেননি। আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত, ‘রাসুল (সা.) অশালীন, অভিশাপকারী ও গালিদাতা ছিলেন না। তিনি কাউকে তিরস্কার করার সময় শুধু এটুকু বলতেন—কী হলো তার? তার কপাল ধূলিমলিন হোক। ’ (বুখারি, হাদিস : ৬০৬৪)



  এই বিভাগ থেকে আরও সংবাদ

   আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)
   পবিত্র মক্কা নগরী খুলে দিয়েছে সৌদি আরব
   পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) ৩০ অক্টোবর
   ৩০ অক্টোবর ঈদে মিলাদুন্নবী
   সদকা বা দানের গুরুত্ব
   মৃত্যু সম্পর্কে পবিত্র কোরআনে আল্লাহ যা বলেন
   সীমিত পরিসরে চালু হচ্ছে ওমরাহ
   মনের পরিছন্নতাই আল্লাহকে পাওয়ার পথ
   যে ৭টি গুণ আল্লাহতায়ালা পছন্দ করেন
   হেঁটে জুম্মার নামাজের যাওয়ার ফজিলত
   পবিত্র আশুরা ৩০ আগস্ট
   মসজিদে আকসা উন্মুক্ত করে দেবে ইসরাইল!
   সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ দিন
   ফজরের নামাজের দশ উপকারিতা
   ‘জাজাকাল্লাহ’ কোথায় বলতে হয়
   জাতীয় মসজিদে ঈদুল আযহায় ৬টি জামাআত অনুষ্ঠিত হবে
   ঈদুল আজহায় বন্ধ থাকবে মসজিদুল হারাম
   মরুভূমিতে সেজদারত অবস্থায় মৃত্যু
   আজ সন্ধ্যায় জানা যাবে কবে ঈদুল আজহা
   দেশে ঈদুল আজহা কবে হবে জানা যাবে কাল
   সূর্যগ্রহণে মহানবী (সা.) কী করতেন
   হজে অংশ নেবে না চার দেশ
   সৌদিতে ঈদের নামাজ বাড়িতে পড়ার ঘোষণা
   সৌদি সরকারের সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করছে এবারের হজ
   ২০ রমজান ‘ঐতিহাসিক মক্কা বিজয় দিবস
   আল্লাহকে স্মরণ করি অন্তর দিয়ে
   আজ ঐতিহাসিক বদর দিবস
   কাবা শরিফের প্রবেশপথে বসল জীবাণুনাশক মেশিন
   মাহে রমজানের দোয়া
   যেসব শর্ত মেনে ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়া যাবে মসজিদে


  পুরনো সংখ্যা