logo
   প্রচ্ছদ  -   লাইফ স্টাইল

কুকুর কামড়ালে তাৎক্ষণিক যা করবেন
Posted on Jul 11, 2019 02:50:21 PM.

কুকুর কামড়ালে তাৎক্ষণিক যা করবেন

সাধারণত পোষা প্রাণীরা তাদের মনিবকে কামড়ায় না। কিন্তু কখনো কখনো কুকুর বা বিড়াল তাদের যারা আদর করেন, খাওয়ান, কোলে নেন এবং সাথে নিয়ে হাঁটতে বের হন তাদেরকেও আঁচড় দিতে পারে।


এই ছোট খাট আঘাতগুলো অ্যালকোহল বা অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল অয়েন্টমেন্ট ব্যবহার করলেই ভালো হয়ে যায়। যদি দুর্ঘটনাবশত কুকুর কামড় দেয় সে কামড় অনেক বেশি যন্ত্রণাদায়ক এবং মারাত্মক। কুকুরের কামড় থেকে জলাতঙ্ক রোগ হতে পারে। রেবিস নামক ভাইরাস থেকে জলাতঙ্ক রোগ হয়ে থাকে। এটি একটি স্নায়ুর রোগ। রেবিস ভাইরাস কুকুরের লালা থেকে ক্ষতস্থানে লেগে যায় এবং সেখান থেকে স্নায়ুতে পৌঁছে জলাতঙ্ক রোগে সৃষ্টি করে। সময় মতো চিকিৎসা না নিলে জলাতঙ্কের কারণে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। এখনও গ্রামে-গঞ্জে কুকুরের কামড়ালে ঝাড়-ফু সহ বিভিন্ন  কুসংস্কার করতে দেখা যায়। যা রোগীর মৃত্যুর কারণ হিসেবে দেখা দেয়।

কুকুর কামড়ালে সঙ্গে সঙ্গে কয়েকটি পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।  যে পদক্ষেপগুলো নিলে আর কোনও ঝুঁকি থাকে না। আসুন এ বিষয়ে জেনে নেওয়া যাক।

ক্ষত পরিষ্কার করুনঃ
প্রথমে একটি পরিষ্কার তোয়ালে দিয়ে ক্ষতের স্থানটি চেপে ধরুন। তারপর কুকুরের কামড় দেওয়া স্থানে বেশি করে সাবান পানি দিয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করুন। অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল সাবান ব্যবহার করা ভাল। এটি ব্যাকটেরিয়া এবং অন্যান্য জীবাণু দূর করে থাকে। তবে ক্ষত পরিষ্কার করার সময় খুব বেশি ঘষাঘষি করবেন না।

রক্ত বন্ধ করুনঃ
ক্ষত স্থানে চাপ দিয়ে কিছুক্ষণ ধরে রাখুন। এতে রক্ত পরা বন্ধ হয়ে যাবে।

ব্যান্ডেজঃ
ক্ষতস্থানটিতে অ্যান্টিবায়েটিক ক্রিম বা অয়েন্টমেন্ট লাগিয়ে নিন। তারপর একটি গজ কাপড় দিয়ে ভাল করে ব্যান্ডেজ করে ফেলুন। ক্ষত স্থান খোলা থাকলে এতে বিভিন্ন রোগ জীবাণু প্রবেশ করতে পারে।

ডাক্তারের কাছে যাওয়াঃ
প্রাথমিক চিকিৎসার পর ডাক্তারের কাছে যেতে হবে এবং তার পরামর্শে টিটেনাস ইনজেকশন দিতে হবে। কুকুর কামড়ানোর পর অব্যশই টিটেনাস ইনজেকশন দিতে হবে। কুকুর কামড়ের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এই ইনজেকশন দেওয়া উচিত।

সতর্কতাঃ
কুকুরের কামড়ে অনেক সময় রোগী মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন। তাকে আস্থা প্রদান করতে হবে যে, সে আবার সুস্থ হয়ে যাবে। প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর অব্যশই রোগীকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যেতে হবে।




  এই বিভাগ থেকে আরও সংবাদ

   বন্যার আগে যেসব খাবার সংরক্ষণ করবেন
   ডিমের রেসিপি পাঠিয়ে পুরস্কার জেতার সুযোগ
   বর্ষায় উপকারী ৫ ফল
   বর্ষায় কাপড়ের স্যাঁতস্যাঁতে গন্ধ দূর করবেন যেভাবে
   ১২ উপায়ে নিজেকে ভালো রাখুন
   জেনে নিন বজ্রপাত থেকে বাঁচার উপায়
   বর্ষায় ভাইরাস জ্বরের ভয়? জেনে নিন লক্ষণ ও করণীয়
   বর্ষায় যে ৫ খাবার খাবেন না
   কোহলির মত দাড়ি রাখতে চান?
   আজকের রেসিপিঃ রূপচাঁদা শুঁটকি ভুনা
   ফিটনেস ঠিক রাখার পাঁচ উপায় ক্যাটরিনার
   ডায়াবেটিসকে দূরে রাখতে যা করবেন
   যেসব লক্ষণে বুঝবেন ডেঙ্গু জ্বর
   পুরুষের প্রতিদিন যে খাবার খাওয়া জরুরি
   আজকের রেসিপিঃ ওভেন ছাড়াই ঝটপট তৈরি করুন পুডিং
   সঠিক উপায়ে চুল পরিষ্কার করছেন তো?
   মৌসুমী ফল লটকনের পুষ্টিগুণ
   বর্ষায় নিজেকে সুস্থ রাখতে করণীয়
   মানসিক অস্থিরতা কমাবে তেজপাতা!
   কোন ভঙ্গিতে ঘুমানো বেশি ভালো?
   জেনে নিন কাঁচা কলার পুষ্টিগুণ
   জেনে নিন কোন তেল মুখে মাখলে বয়স বাড়বে না!
   ৫টি প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক
   হৃদরোগ প্রতিরোধে ডা. দেবী শেঠীর ২৫টি পরামর্শ
   জামের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা
   যেসব ভুলের কারণে ডায়েরিয়া হতে পারে
   পরিপূর্ণ না ঘুমালে ৭ বিপদ
   ছেলেরা ঘন দাঁড়ি পেতে যা করবেন
   মোসাদ্দেক সৈকত কি বাংলাদেশের ম্যাক্সওয়েল হতে পারবেন?
   রেসিপি: ঘরেই বানান মিষ্টি দই


  পুরনো সংখ্যা