logo
   প্রচ্ছদ  -   পুলিশ

শেষ কবে বাড়িতে ঈদ করেছি মনে নেই- পুলিশ কমিশনার
Posted on Aug 12, 2019 11:13:36 AM.

শেষ কবে বাড়িতে ঈদ করেছি মনে নেই- পুলিশ কমিশনার

কর্মস্থলে সহকর্মী পুলিশ সদস্যদের বেশিরভাগ ছুটি দিতে পারা ও যারা ছুটি পায় না তাদেরকে আনন্দে রাখার মধ্যে ঈদের আনন্দ খুঁজে পান চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. মাহবুবর রহমান।


ঈদের আনন্দ নিয়ে এক আলাপচারিতায় সিভয়েসকে এসব কথা বলেন তিনি।  তিনি বলেন, এখন আমার ঈদের আনন্দ হচ্ছে আমি কর্মস্থলে সহকর্মীদেরকে বেশিরভাগ ছুটি দিতে পারলাম কিনা৷ যদি বেশিরভাগ ছুটি দিতে পারি তখন আমি মনে করি আমার ঈদের আনন্দটা পূর্ণাঙ্গ হয়। কিন্তু এটাও অনেক সময় দিতে পারিনা। অনেক সময় দেখা যায় যতটুকু ছুটি তাদের পাওয়ার কথা ততটুকু তাদেরকে দেয়া সম্ভব হয়না। তবে আমার চেষ্টা থাকে বেশিরভাগ ছুটি দেয়ার জন্য। 

ছুটি পাওয়ার ব্যাপারে অনিশ্চয়তার কথা উল্লেখ করে সিএমপি কমিশনার বলেন, অনেক ক্ষেত্রে পুলিশ সদস্যরা ছুটি হয়তো পায়। তবে শেষ মুহুর্তে। এতে অনেকে কোন টিকেট পায়না, বাড়িও যেতে পারে না। পাশাপাশি পরিবারকে নিয়ে ঈদ উৎযাপনের কোন পরিকল্পনা সাজাতে পারেনা। এই অনিশ্চয়তা দূর করার চেষ্টা ছিল।


এবার চেষ্টা করেছি পর্যায়ক্রমে অনেক আগে থেকে ছুটি দেয়ার। সাত দিন আগে থেকেই ফোর্স জানে সে ছুটি পাবে কি পাবেনা। আমরা এবার মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে ফোর্সকে ছুটি দিয়েছি। তারা আগে থেকেই ছুটির তথ্য জানতে পারছে। ফলে বাবা মাকে জানাতে পারছে যে আমি ঐ দিন আসবো, পরিবারের সাথে ঈদ পালনের পরিকল্পনা সাজাতে পারছে। 

তবে ফোর্সকে ছুটি দেয়ার মধ্যে আনন্দ খুঁজে পেলেও নিজে শেষ কবে গ্রামে ঈদ করেছেন এটা ঠিক মনে করতে পারছেন না বলে জানান তিনি। শেষ কবে গ্রামে ঈদ করেছেন এই প্রশ্নের জবাবে বলেন, শেষ কবে গ্রামে ঈদ করেছি মনে নেই। তবে গত রোজার ঈদের পরদিন একদিনের জন্য গ্রামে গিয়েছিলাম। তবে ঈদের নামাজ শেষ কবে গ্রামে পড়েছি তা মনে নেই। 

শৈশবের ঈদের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, গ্রামে ছোট বেলায় ঈদ করার আনন্দ ছিল ভিন্ন। ঈদের আগে থেকে ঈদ আসবে, ৩ দিন পর ঈদ, ২ দিন পর ঈদ এই যে প্রতীক্ষাটা ছিল সেটাই বেশি আনন্দের ছিল। এই আনন্দটাতো এখন অবশ্য আর পাওয়ার সুযোগ নেই। তবে আমার সন্তানরা নিশ্চয়ই সে ধরনের আনন্দ ফিল করে। যেটা আমরা ছোট বেলায় করতাম। 

বাড়িতে পরিবারের সাথে ঈদ করার যে আনন্দ তা এখন স্থানান্তরিত হয়েছে সন্তানদের সাথে ঈদ করার আনন্দে। আমি যদি কর্মস্থলেই ঈদ করি এবং সেটা যদি হয় আমার স্ত্রী সন্তানদের সাথে তাহলে আমি মনে করি আমার গ্রামের ছোট বেলার যে ঈদ সে ঈদের পূর্ণতা পেয়ে যায়। তবে সেটাও অনেক সময় হয়ে উঠে না আমার জন্য। অনেক সময় কন্যা, ছেলে, স্ত্রী থাকে ঢাকায় আর আমি থাকি কর্মস্থলে। তবে এবার যেহেতু তারা এসেছে, আমার কাছে মনে হয়েছে আমার ঈদের আনন্দ পূর্ণতা পাচ্ছে। 

তিনি বলেন, কর্মস্থলে স্ত্রী, সন্তান ও সহকর্মীদের নিয়ে ঈদ করাটাই এখন আনন্দের। এখন আর গ্রামে বাবা-মার সাথে ভাই-বোনের সাথে ঈদ করতে পারলাম না সেই কষ্ট নিজেকে পীড়িত করে না। বরং বেশি ফোর্স যেন ছুটি পায় আর যারা ছুটি পায়না তাদেরকে আনন্দে রাখার মধ্যে আনন্দ পাই। 

ঈদের দিনের পরিকল্পনার বিষয়ে তিনি জানান, ঈদের দিন শুরু হবে নামাজের মধ্য দিয়ে। ছেলেদের নিয়ে পুলিশ লাইন মসজিদে নামাজ পড়বো। নামাজের পর ফোর্সের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করবো। কুরবানির পর ফোর্সের বড়খানায় অংশ নিব। এরপর বাসায়  পরিবারের সদস্যরা, আত্মীয় স্বজনদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়। বিকেলে ও রাতে বেশ কিছু প্রোগ্রাম আছে যেগুলোতে আমি নিমন্ত্রিত। হয়তো অংশ নিব। ঈদের পরের দিন আমার বাসায় আমার দাওয়াতে বন্ধু বান্ধব, আত্মীয় স্বজন, পরিচিতরা অনেকে আসবেন।




  এই বিভাগ থেকে আরও সংবাদ

   থানাকে জনবান্ধব করতে আইজিপির নির্দেশ
   সিএমপি স্কুল এন্ড কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায়ী সংবর্ধনা
   ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে নিজের বুকে গুলি চালালো পুলিশ
   ওয়ান স্টপ পেনশন সার্ভিস সেন্টার উদ্বোধন
   কেমন করে ব্যবহার করবেন ৯৯৯ জরুরি সেবা?
   সড়ক ব্যবস্থাপনা সংক্রান্তে মেট্রো আরটিসি ও বিআরটিএ এর সাথে আলোচনা সভা
   চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত
   জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ক্ষণ গণনার জন্য ডিজিটাল ঘড়ি
   ডিএমপিতে উপ-পুলিশ কমিশনার পদমর্যাদার এক কর্মকর্তার বদলি
   থানা হেফাজতে আত্মহত্যার দায় পুলিশ এড়াতে পারে না
   কোতোয়ালী থানা প্রাঙ্গনে জানুয়ারী মাসের ওপেন হাউস ডে অনুষ্ঠিত
   সমাপ্ত হলো দুদক ও সিটিটিসির সপ্তাহব্যাপী তদন্ত বিষয়ক প্রশিক্ষণ
   চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের মাসিক অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত
   দেশের বিচার ব্যবস্থা ও গণমাধ্যম সম্পূর্ণ স্বাধীন: চট্টগ্রামে র‌্যাব মহাপরিচালক
   বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন এর ১২১ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি গঠিত
   বিজ্ঞপ্তি
   সিএমপি’র উত্তর বিভাগের উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণ কর্মসূচি
   ১১৮ জন পেলেন বিপিএম-পিপিএম পদক
   ‘পুলিশ সপ্তাহ ২০২০’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
   আজ থেকে শুরু ‘পুলিশ সপ্তাহ ২০২০’
   বিপিএম ও পিপিএম পদক ২০১৯ পেলেন যাঁরা
   অটোরিক্সা পরিচিতি কার্ড লাগানো কার্যক্রম চালু করলো সিএমপির ট্রাফিক বিভাগ
   রবিবার শুরু হচ্ছে পুলিশ সপ্তাহ
   পুলিশের ৫৯৫ জন পাচ্ছেন ‘আইজিপি ব্যাজ’
   মাদকদ্রব্য, আগ্নেয়াস্ত্র ও চোরাচালান মালামাল উদ্ধারে দেশব্যাপী প্রথম স্থান অর্জন করেছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ
   ৪ জানুয়ারি বিটিভি, বিটিভি ওয়ার্ল্ডে পুলিশ সপ্তাহের ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘মিলেছি মেলবন্ধনে’
   চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) এর উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ
   পুলিশের চেষ্টায় পরিবার ফিরে পেল মানসিক ও বাকপ্রতিবন্ধী যুবক
   ইভটিজিং প্রতিরোধ কল্পে বাসের অভ্যন্তরে নম্বর যুক্ত স্টিকার লাগানো কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করা হয়।
   পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসব-২০২০


  পুরনো সংখ্যা