logo
   প্রচ্ছদ  -   জাতীয়

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঘিরে চলছে প্রস্তুতি!
Posted on Aug 18, 2019 11:27:12 AM.

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঘিরে চলছে প্রস্তুতি!

রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের ঘটনা তদন্তে মিয়ানমারের একটি দল ঢাকায় এসেছে। আর ২২ আগস্ট আন্তর্জাতিক একটি সংবাদ সংস্থায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে পারে বলে প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ায় আবারও নড়াচড়া শুরু হয়েছে রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে।

সরেজমিন দেখা গেছে, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য গতবছর তৈরি করা টেকনাফের নাফ নদীর সীমান্তে অবস্থিত কেরণতলী ঘাটটিতে আবারও সংস্কারের কাজ চলছে। এখানকার বাতাসে ফিসফাস, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে পারে সহসাই।

তবে রোহিঙ্গারা এখনও জানেন না, কীভাবে কোন কোন শর্তে তাদের স্বদেশে ফিরিয়ে নিতে চায় মিয়ানমার।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়ে সরকারের আনুষ্ঠানিক কোনও বক্তব্য বা পদক্ষেপের বিষয়ে এখনও কোনও তথ্য জানা যায়নি।

বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে শরণার্থী, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশন (আরআরআরসি)। এই কমিশনের কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কালামের কাছে ২২ আগস্ট রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু করতে সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

তবে কখন প্রত্যাবাসন শুরু হবে সে বিষয়ে এখনও অবগত নই।’

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশন (ইউএনএইচসিআর) আরআরআরসি-এর পাশাপাশি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়টি দেখভাল করছে।

এজন্য দেশে ফিরতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রতিবেদন তৈরি করে সরকারের কাছে জমা দেওয়ার কথা রয়েছে তাদের। তবে বিষয়টি নিয়ে সংস্থাটির কোনও কর্মকর্তা কথা বলতে রাজি হননি।

এদিকে, শনিবার (১৭ আগস্ট) বিকালে টেকনাফ কেরণতলী প্রত্যাবাসন ঘাট পরিদর্শনে গিয়ে সেখানে কয়েকজন শ্রমিককে কাজ করতে দেখা গেছে। এসময় প্রত্যাবাসন নিয়ে কাজ করা একটি দলকেও প্রত্যাবাসন কেন্দ্রের বিভিন্ন স্থান ও কক্ষ ঘুরে দেখতে দেখা যায়। তবে গণমাধ্যমকে এড়িয়ে যান তারা।

তবে প্রত্যাবাসন ঘাটে দায়িত্বে থাকা প্রত্যাবাসন কমিশনার কার্যালয়ের প্রতিনিধি মোহাম্মদ শহীদুল হাসান জানান, এই ঘাট দিয়ে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন হওয়ার কথা রয়েছে। তাই কর্তৃপক্ষের নির্দেশে এখানে কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন কাজকর্ম চলছে।

প্রত্যাবাসন ঘাটে দায়িত্বরত ১৬ আনসার ব্যাটালিয়নের হাবিলদার মোহাম্মদ আইনুল হক বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঘাটে কয়েকদিন ধরে কাজ চলছে। তাদের আমরা সহযোগিতা করছি। শুনেছি, কয়েকদিনের মধ্যে এই ঘাট দিয়ে রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফেরত যাবে।’

এরপর পাশের নয়াপাড়া শালবন রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করে দেখা গেছে, প্রত্যাবাসনের বিষয়ে তাদের মধ্যে আলোচনা চলছে। এ ছাড়া, এই রোহিঙ্গা শিবিরের সিআইসি কার্যালয়ের পাশে ‘প্রত্যাবাসনের তালিকায়’ নাম থাকা রোহিঙ্গাদের সাক্ষাৎকার নেওয়ার জন্য তড়িঘড়িভাবে প্লাস্টিকের ছোট ছোট ঘর তৈরি করে ঘেরা দিতে দেখা গেছে। এখানেও বেশকিছু রোহিঙ্গা শ্রমিক কাজ করছিলেন। এর মধ্যে কথা হয় আবদুল করিম নামে এক শ্রমিকের সঙ্গে।

তিনি বলেন, ‘মিয়ানমারে ফেরত যাবে এমন রোহিঙ্গাদের জন্য এসব তৈরি করা হচ্ছে। আমরা শুনেছি, কিছু রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর কথা রয়েছে।’

এই শিবিরের চেয়ারম্যান রমিদা বেগম বলেন, ‘শুনেছি, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন হবে। তবে হঠাৎ করে কারও সঙ্গে কথা বললে এই প্রত্যাবাসন নিয়ে রোহিঙ্গাদের মাঝে হতাশা বিরাজ করে। কেননা, শিবিরের সিআইসি কার্যালয়ে পাশে এনজিওরা তাড়াহুড়াভাবে ছোট ছোট ঘর তৈরি করছে। এ নিয়ে রোহিঙ্গাদের মাঝে কানাঘুষা চলছে। ’

টেকনাফের জাদিমুড়া ২৭ নম্বর রোহিঙ্গা শিবিরের চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হোক, সেটি আমরা চাই। তবে রোহিঙ্গা নির্যাতনের বিচার নিশ্চিত করে নিজ দেশের নাগরিকত্ব দিলে আমরা ফেরত যেতে প্রস্তুত। হঠাৎ করে প্রত্যাবাসনের খবরে রোহিঙ্গারা উদ্বিগ্ন। কীভাবে কী হচ্ছে তা আমরা বুঝতে পারছি না।’

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে ২৫ আগস্টে কোরবানি ঈদের মাত্র কয়েকদিন আগে রাখাইনের ৩০টি নিরাপত্তা চৌকিতে একযোগে হামলার ঘটনা ঘটে। প্রতিক্রিয়ায় মিয়ানমার সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের ওপর ব্যাপক নিপীড়ন শুরু করে। ফলে প্রাণ বাঁচাতে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেয়। পুরনোসহ উখিয়া-টেকনাফের ৩০টি শিবিরে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা অবস্থান করছে। তবে জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, উখিয়া-টেকনাফে আশ্রিত রোহিঙ্গার সংখ্যা ১১ লাখ ৮৫ হাজার ৫৫৭। এর মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশি।




  এই বিভাগ থেকে আরও সংবাদ

   সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
   দগ্ধ আটজনের একজনের বিদায়
   সিদ্ধিরগঞ্জে গ্যাসের আগুনে এক পরিবারের ৮ জন দগ্ধ
   কাতার বাংলাদেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি নিয়োগে আগ্রহী
   জমে উঠেছে বইমেলা
   চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির
   নেপালের ইজতেমায় বাংলাদেশি আর পাকিস্তানিরা নিষিদ্ধ
   সিঙ্গাপুর ছাড়া আর কোথাও বাংলাদেশি করোনা রোগী নেই
   ৫টি আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত
   ফতুল্লায় বস্তির ৬০ বসতঘর পুড়ে ছাই
   সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট রহমত আলী আর নেই
   পরমাণু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার জন্মবার্ষিকী আজ
   ব্যক্তিগত গাড়িতে ছাত্রলীগের লোগো ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা
   ৪০ হাজার দক্ষ চালক তৈরির উদ্যোগ
   বাস-নসিমন সংঘর্ষে প্রাণ গেল তিন শ্রমিকের
   বসন্ত এসেছে ভালোবাসার চাদর বিছিয়ে
   করোনাভাইরাস নিয়ে গুজব ছড়ানোয় ৫ জন পুলিশ হেফাজতে
   উহানফেরত ৩১২ জন বাড়ি ফিরছেন কাল
   চীনে করোনাভাইরাসে প্রাণহানিতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
   শতভাগ বিদ্যুতের আলোয় ৪১০ উপজেলা
   সিঙ্গাপুরে করোনায় আক্রান্ত আরেক বাংলাদেশি
   সব উপজেলায় মুজিবমঞ্চ হবে: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী
   বড় ভাইকে হত্যার পর রক্তমাখা ছুরি হাতে থানায় ছোট ভাই
   মুজিববর্ষে প্রতিটি ঘরে পৌঁছাবে বিদ্যুতের আলো: প্রধানমন্ত্রী
   তেজগাঁওয়ে পোশাক শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ
   আজ ৩৭ ও ৩৯তম বিসিএস নন-ক্যাডার ফল প্রকাশ
   ২০২৫ সালের মধ্যে সব বয়স্ককে ভাতা দেবে সরকার’
   মাটির নিচ থেকে হলেও মাদক কারবারি ধরা হবে: র‌্যাবের ডিজি
   ৪তম স্প্যান স্থাপনে পদ্মা সেতু দৃশ্যমান ৩৬০০ মিটার
   নিরাপদ সড়ক নেটওয়ার্ক তৈরিতে একনেকে প্রকল্প উত্থাপন


  পুরনো সংখ্যা